Saving Private Ryan (1998)

Opening with the Allied invasion of Normandy on 6 June 1944, members of the 2nd Ranger Battalion under Cpt. Miller fight ashore to secure a beachhead. Amidst the fighting, two brothers are killed in action. Earlier in New Guinea, a third brother is KIA. Their mother, Mrs. Ryan, is to receive all three of the grave telegrams on the same day. The United States Army Chief of Staff, George C. Marshall, is given an opportunity to alleviate some of her grief when he learns of a fourth brother, Private James Ryan, and decides to send out 8 men (Cpt. Miller and select members from 2nd Rangers) to find him and bring him back home to his mother...

8.6

Share on facebook
Share on twitter
Share on whatsapp
Share on linkedin

Movie

Following the Normandy Landings, a group of U.S. soldiers go behind enemy lines to retrieve a paratrooper whose brothers have been killed in action.

Saving Private Ryan (1998)

“ আমার মনে হয় Saving Private Ryan (1998) ভাল লাগেনি এমন লোক খুজে পাওয়া যাবে না । এই মুভি ভাল লাগার পেছনে আমি কিছু কারন খুজে পেয়েছি। বলতে পারেন সেগুলো শেয়ার করার জন্যই লিখা । আমি জানি মুভি টি যেই দেখেছে সেই কারন গুলো খুজে পাবে।

১। ছবিতে প্রধান চরিত্রে যে অভিনয় করেছেন তিনি হলেন টম হ্যাংস। যার মত অভিনেতা আমার মনে হয় বিরল। আমি তার যতগুলো মুভি দেখেছি তাতে আমার কাছে খুব ভাল লেগেছে। যদিও আমি অভিনয় বিশ্লষন করতে পারি না। তার পরও আমার মনে হয়েছে তিনি খুবই ভাল অভিনয় করেন।

তাকে ঘিরেই মুভিটি এগিয়ে গিয়েছে। ক্যাপ্টেন মিলার নাম নিয়ে লোকটি মুভিতে অসাধারন অভিনয় করেছেন। মুভিতে যুদ্ধকালীন মনের অবস্থা প্রকাশ পায়। সৈনিকদের সামনে শক্ত থাকলেও তার মাঝে যে কোমল হদয় আছে তা প্রকাশ পায় যখন দেখি সে সবার আডালে গিয়ে কাদতে থাকে। মুভির প্রতিটি জায়গায় তার অসাধারন অভিনয় দেখা যায়। পাওয়া যায় বাস্তবতার ছোয়া।

২। ছবিতে আরো যারা অভিনয় করেছেন তাদের অভিনয়ও অসাধারন হয়েছে। আমি জানি না তারা ১৯৯৮ এ বিখ্যাত ছিলেন কিনা । কিন্তু অবাক করা বিষয় হল তারা এখন সবাই খুব নামকরা অভিনেতা। তাই তাদের অভিনয় ছিল প্রশ্নাতীত। মুভিতে সবাই কে একসাথে দেখে খুব ভাল লাগে। মুভিটি সফল হবার পেছনে তাদের অনেক বেশি অবদান। বিশেষ করে স্নাইপার ব্যারি পিপার এবং সার্জেন্ট টম সিজমোর অসাধারন অভিনয় করেছেন। ভাল অভিনয় করেছেন “আপহাম” মানে ঐ ক্যাপ্টেন মিলার এর দলের দোভাষী।

৩। এবার আলোকপাত করা যাক মুভিটির প্লট নিয়ে। যে গল্প নিয়ে মুভিটি বানানো হয়েছে তার কোন তুলনা হয় না।যে কারো আবেগ কে মুভিটি নাডা দিতে পারে। আমি এমন কোন কাহিনীর মুভি দেখিনি। যদিও আমি খুব বেশি মুভি দেখেছি বলে দাবি করব না। সত্যি এমন কাহিনী বিরল। শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত একট টানা দেখতে কোন প্রকার বোরিং লাগবে না।

৪। জানি না পুরো মুভি দেখার সময় কেমন যেন আবেগ কাজ করে। প্রতিটি মূর্হতে কাজ করে। এটা কি অভিনেতা দের গুন নাকি কাহিনী তা বলতে পারি না। আর যে কথাটি না বললেই না হয় তা হল রায়ানের মার জন্য খুব খারাপ লাগে। “জেমস রায়ান চলে আসলে এতটা ক্ষতি হত না” যখন ভাবি তখন আবার মনে হয় ঐ মূর্হতে হয়ত দায়িত্ব ছিল সব চেয়ে বড। আবার হয়ত সে চলে আসলে মুভিটা আর এমন হত হত না ।

৫। মুভিটির শুরুর পার্টে যে যুদ্ধ দেখানো হয়েছে তা অসাধারন। ব্লগেই পডেছিলাম এর মাধ্যমে নাকি পরিচালক যুদ্ধের ভয়াবহতা তুলে ধরেছেন এবং এর পরের কাহিনী হল আবেগ আর ভালবাসার।

৬। সবার শেষে বলব পরিচালক স্পিলবার্গের কথা। তার সম্পর্কে কি বলব। জানি না তিনি ওয়ার মুভি একটাই করেছে কিনা । শিন্ডালার লিস্ট এবং সেভিং প্রাইভেট রায়ান মুভি করেই অনেকগুলো পুরস্কার পাওয়া পরিচালক জিনিয়াস ছাডা আর কি। তার নির্মান শৈলী অসাধারন।

৭। ক্যাপ্টেন মিলার মারা যাবার আগে যখন রায়ান কে বলে “জেমস আর্ন ইট ” তখন চোখের পানি ধরে রাখা কঠিন হয়ে পডে। সত্যি এই মুভির জন্য কোনোদিন আমার ভালবাসার অভাব হবে না। ”

মুভিটির ডাউনলোড লিংক নিচে দেওয়া আছে। চাইলে দেখে নিতে পারেন অসাধারণ মুভিটি।

যেভাবে টরেন্ট ফাইল ডাউনলোড করবেন।

অন্যান্য মুভির জন্য ভিজিট করুন এই লিংকে। 

saving private ryan (1998)

Country: USA

Director: Steven Spielberg

Writter: Robert Rodat

Actors: Tom Hanks, Matt Damon, Tom Sizemore, Edward Burns

Award: Academy Award for Best Cinematography, MORE

Duration: 2h 50m

العربيةবাংলা简体中文NederlandsEnglishFilipinoFrançaisDeutschहिन्दीItaliano한국어Bahasa MelayuPortuguêsРусскийEspañol